বৃহঃস্পতিবার, ১ জুন ২০২৩
১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বিধ্বস্ত হওয়ায় অজুহাত দিচ্ছে ব্রড: স্টার্ক


ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 প্রকাশ: ০৪:৫৩ পিএম, ২৫শে মে ২০২৩

ফাইল ছবি

করোনাকালীন সময়ে হওয়ায় সবশেষ অ্যাশেজ সিরিজকে গোনার বাইরে রাখেন মন্তব্য করে তোপের মুখে পড়েছেন স্টুয়ার্ট ব্রড। ইংলিশ পেসারের এমন কথার পাল্টা উত্তর দিয়েছেন মিচেল স্টার্ক। অস্ট্রেলিয়ান পেসারের প্রশ্ন ছিল, বিধ্বস্ত হওয়ার কারণে অজুহাত দিচ্ছেন না তো ব্রড।


সবশেষ অ্যাশেজে ২০২১-২২ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ায় গিয়ে রীতিমতো উড়ে যায় ইংল্যান্ড। পাঁচ ম্যাচের সিরিজটি তারা হেরে যায় ৪-০ ব্যবধানে। কেবল সিডনি টেস্ট ড্র করতে পারে তারা শেষ জুটির নাটকীয়তায়। বৃষ্টিতে অনেকটা সময় খেলা নষ্ট না হলে হয়তো হোয়াইটওয়াশের স্বাদ পেত ইংলিশরা।


ভরাডুবির ওই সিরিজকে ‘সত্যিকারের অ্যাশেজ’ হিসেবে গণ্য করতে নারাজ ব্রড। সংবাদ সংস্থা ডেইলি মেইলে গত মাসে তিনি বলেছিলেন, করোনার কারণে কোয়ারেন্টিন ও নানা বাধ্যবাধকতায় ওই সিরিজে লড়াইয়ের উপযুক্ত পরিবেশই ছিল না। তাই সিরিজটিকে বাতিলের খাতায় রেখেছেন তিনি। এখানেই আপত্তি স্টার্কের।


আরো পড়ুন : হঠাৎ ম্যারাডোনার ফেসবুকে পোস্ট ‘আমার মৃত্যুর খবরটি সঠিক নয়’



বুধবার (২৪ মে) অস্ট্রেলিয়ান গণমাধ্যম সিডনি মর্নিং হেরাল্ডে তিনি বলেন, বড় হারের কারণে অজুহাত দিচ্ছেন ব্রড। তিনি জানান, ওটা কি সত্যিই কোয়ারেন্টিন ছিল? ওই সফরে তাদের তো গলফ খেলারও সুযোগ ছিল। এটা কি ৪-০ ব্যবধানে হারার অজুহাত? চমৎকার সিরিজটির অংশ হওয়া দারুণ ব্যাপার ছিল।তাদের জন্য পুল, জিমের ব্যবস্থা ছিল। তারা গোল্ড কোস্টে রিসোর্টে ছিল। অনুশীলন করেছিল মেট্রিকন স্টেডিয়ামে। রুমে বন্দী হয়ে থাকতে হয়নি, তাদের পরিবারও সঙ্গে ছিল।


আরো পড়ুন : আইপিএলে নতুন মাইলফলক স্পর্শ করলেন গিল


ব্রডের মন্তব্য হাস্যকর মনে হয়েছে স্টার্কের কাছে। তিনি বলেন, কোভিডের সময় হলেও স্বাভাবিক পরিবেশই পেয়েছিল ইংল্যান্ড। স্টার্ক বলেন, সবচেয়ে হাস্যকর হচ্ছে, গোল্ড কোস্টে তারা এটাকে জৈব সুরক্ষাবলয় বলছে। কোয়ারেন্টিনের অভিজ্ঞতা আমার সাতবার হয়েছে। এটাই ছিল সবচেয়ে সহজ।


এবারের অ্যাশেজ ইংল্যান্ডের মাটিতে। আগামী ১৬ জুন এজবাস্টনে শুরু হবে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই দলের ঐতিহাসিক সিরিজটি।


জেবি/এসবি

বিশ্বকাপের আগে ভালো করে প্রস্তুতি নিচ্ছি: হেরাথ


ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 প্রকাশ: ০১:২৬ পিএম,৩১শে মে ২০২৩

রঙ্গনা হেরাথ

ভারতের মাটিতে আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। ৫০ ওভারের বিশ্বকাপ সামনে রেখে তামিম ইকবালের নেতৃত্বে ওয়ানডে দল গুছিয়ে নিচ্ছে টিম ম্যানেজমেন্ট। আফগানদের সঙ্গে সিরিজ সামনে রেখে সোমবার থেকে শুরু হয়েছে প্রাথমিক স্কোয়াড নিয়ে অনুশীলন। যেখানে আলাদা করে গুরুত্ব পাচ্ছে বোলিং ইউনিট।


অবশ্য   স্পিনারদের নিয়ে কাজ করছেন স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ। তবে সাবেক লঙ্কান এই ক্রিকেটার টাইগারদের দুই বিভাগের বোলিং নিয়েই ভালো করার চেষ্টার কথা জানিয়েছেন। মঙ্গলবার (৩০ মে) আফগানিস্তান সিরিজের প্রস্তুতি হিসেবে মিরপুরে অনুশীলন করেছে জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। 


আর এ সময় হেরাথ জানান, ''পেসার ও স্পিনার মিলিয়ে প্রপার বোলিং ইউনিট থাকলে সেরা বোলিং ইউনিট তৈরি করা যায়, আমরা সেই চেষ্টাই করছি''


আরও পড়ূন: ছোটন দায়িত্ব ছেড়েছে যাতে আমার মানহানি হয়: বাফুফে সভাপতি



সাংবাদিকের এক  প্রশ্নের উত্তরে  হেরাথ বলেন, ''এখানে ইউনিট না, দল আসল ব্যাপার। কেউ ভালো করলে আমরা সবাই খুশি হই, খারাপ করলে সবাই মিলেই সমাধানের পথ খুঁজি। আমরা একটা দল।''


আরও পড়ুন: আইপিএলের পঞ্চম শিরোপা জিতল চেন্নাই


তিনি বলেন, ''স্পিনারদের জন্য কন্ডিশন কঠিন হলে চ্যালেঞ্জ তো অবশ্যই। এজন্যই আমরা বিশ্বকাপের আগে ভালো করে প্রস্তুতি নিচ্ছি। আমরা বৈচিত্র্য ও টেকটিকস নিয়ে কাজ করছি। পিচ থেকে সহায়তা না পেলে এগুলো কাজে লাগাতে হবে। বিশ্বকাপের উইকেটে স্পিনারদের তেমন সহায়তা নেই।''


জেবি/এসবি


আবাহনী-মোহামেডান ফাইনাল দেখতে হেলিকপ্টারে উড়াল দিলেন সালাউদ্দিন


ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 প্রকাশ: ০৪:৫৬ পিএম,৩০শে মে ২০২৩

বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন

আবাহনী-মোহামেডানের মধ্যকার ফাইনাল ম্যাচ দেখতে  হেলিকপ্টারে গেছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। খেলা শুরুর ঘণ্টাখানেক আগেই কুমিল্লায় পৌঁছান তিনি।


আরও পড়ূন: ছোটন দায়িত্ব ছেড়েছে যাতে আমার মানহানি হয়: বাফুফে সভাপতি


ঢাকার বাইরে ব্যক্তিগত বা যে কোনো সফরে গেলে সালাউদ্দিন অধিকাংশ ক্ষেত্রে হেলিকপ্টার ব্যবহার করেন অনেক আগে থেকেই।  সেই ধারাবাহিকতায় ফাইনাল দেখতে হেলিকপ্টারে করে এসেছেন সালাউদ্দিন। ম্যাচ শুরুর ঘণ্টা খানেক আগেই কুমিল্লায় এসে পৌঁছান তিনি।


আরও পড়ুন: আইপিএলের পঞ্চম শিরোপা জিতল চেন্নাই


কাজী সালাউদ্দিন কোনো জেলা স্টেডিয়ামে গিয়ে অতীতে লিগের খেলা দেখেননি। আবাহনী-মোহামেডান অনেক দিন পর ফাইনাল হওয়ায় তিনি কুমিল্লায় গেছেন। হেলিকপ্টারেই ফিরবেন বলে ফাইনাল শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে তার থাকার সম্ভাবনা কম। 


জেব/এসবি

আইপিএলের পঞ্চম শিরোপা জিতল চেন্নাই


ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 প্রকাশ: ১০:২৮ এএম,৩০শে মে ২০২৩

ছবি: সংগৃহীত

পঞ্চমবারের মতো আইপিএলের শিরোপা ঘরে তুলল মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস। বৃষ্টিবিঘ্নিত ফাইনালে গুজরাট টাইটান্সকে হারালেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনিরা। শেষ ২ বলে জিততে দরকার ছিল ১০ রান। মোহিত শর্মা তার আগের ৪টি বলে মাত্র ৩ রান দিয়েছিলেন। কিন্তু শেষ ২টি বলেই বাউন্ডারি হয়েছে। পঞ্চম বলে ছক্কা ও শেষ বলে চার মেরে দলকে জিতিয়েছেন রবীন্দ্র জাদেজা।


এভাবে রুদ্ধশ্বাস এই ফাইনালে ৫ উইকেটে নাটকীয় জয় পায় চেন্নাই। গুজরাট টাইটান্সের টানা দ্বিতীয় শিরোপার স্বপ্ন ভেঙে চ্যাম্পিয়ন হলো চেন্নাই সুপার কিংস। আইপিএলে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো শিরোপা জিতলো ধোনির দল। তাদের সমান ৫টি শিরোপা কেবল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের।


সোমবার (২৯ মে) আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামে হাইভোল্টেজ ফাইনালে গুজরাটের দেওয়া ২১৫ রানের লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে চেন্নাই মাত্র ৩ বল মোকাবিলা করার পরই বৃষ্টি নামে। এরপর ১৫ ওভারে ধোনির দলের লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৭১ রান। এই রান তাড়া করতে নেমে চেন্নাইয়ের দুই ওপেনার ডেভন কনওয়ে ও ঋতুরাজ গায়কোয়াদ ব্যাট হাতে ঝড় তুলেন।

এর আগে, রবিবার ছিল ফাইনালের নির্ধারিত দিন। কিন্তু বৃষ্টির কারণে টসই করা গেল না। ফলে ম্যাচ গড়ায় রিজার্ভ ডেতে। সেই রিজার্ভ ডেতেও এক ইনিংস যাওয়ার পর বৃষ্টির হানা।


ফলে সোমবারের ম্যাচ সময়ের হিসেবে মঙ্গলবার (৩০ মে) চলে গেল। আদতে একটা ফাইনাল শেষ করতে লাগল তিন দিন! তবে এতটা অপেক্ষার পর হতাশ হতে হয়নি সমর্থকদের। এমন ম্যাচ দেখার সৌভাগ্য যে মেলে কালেভদ্রে!



আরও পড়ুন: ছোটন দায়িত্ব ছেড়েছে যাতে আমার মানহানি হয়: বাফুফে সভাপতি



বৃষ্টি হতে পারতো চেন্নাইয়ে অভিশাপ, সেটি হয়েছে আশীর্বাদ। অভিশাপ কিভাবে? এই ম্যাচটি যদি পরিত্যক্ত হতো, তবে গ্রুপপর্বে পয়েন্ট বেশি থাকার সুবাদে চ্যাম্পিয়ন হতো গুজরাট টাইটান্স। কিন্তু বৃষ্টি এসে উল্টো আশীর্বাদ করে দিলো মহেন্দ্র সিং ধোনির দলকে।


গুজরাট তাদের সামনে ২০ ওভারে ছুড়ে দিয়েছিল ২১৫ রানের বিশাল লক্ষ্য। ম্যাচ পুরোটা হলে কাজটা কঠিনই হতো। কিন্তু বৃষ্টির কারণে ওভার কমে যায়। ফলে ১৫ ওভারে চেন্নাইয়ের সামনে বেঁধে দেওয়া হয় ১৭১ রানের লক্ষ্য। চেন্নাই অবশ্য রান তাড়ায় ভালোভাবেই ছিল। ওপেনার রুতুরাজ গাইকদের ১৬ বলে ২৬, ডেভন কনওয়ের ২৫ বলে ৪৭ আর আজিঙ্কা রাহানের ১৩ বলে ২৭ রানে বেশ ভালো অবস্থানে দাঁড়ায় ধোনির দল।


১২.৩ ওভার শেষে রান ছিল ৩ উইকেটে ১৪৯। অর্থাৎ শেষ ১৫ বলে চেন্নাইয়ের লাগতো ২২ রান, হাতে ৭ উইকেট। এমন সময়ে এসে জোড়া উইকেট শিকার করে ম্যাচ জমিয়ে তোলেন মোহিত শর্মা।


আরও পড়ুন: মেসিকে ধন্যবাদ এমবাপ্পের


বিদায়ী ম্যাচ খেলতে নামা আম্বাতি রাইডুকে (৮ বলে ১৯) আর অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিকে গোল্ডেন ডাকে (১ বলে ০) ফেরান এই পেসার। চাপে পড়ে চেন্নাই। ১৪তম ওভারে মোহাম্মদ শামি দেন মাত্র ৮ রান। ফলে শেষ ওভারে চেন্নাইয়ের দরকার পড়ে ১৪।


মোহিত প্রথম ৪ বলে মাত্র ৪ রান দিলে ম্যাচ ঝুলে যায় গুজরাটের দিকে। সেখান থেকে রবীন্দ্র জাদেজার অসাধ্য সাধন। পঞ্চম বলে লংঅনের ওপর দিয়ে ছক্কা, শেষ বলে মোহিতের লো ফুলটস শর্ট ফাইন লেগ দিয়ে চার। বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস জাদেজার। ধোনি যেন নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলেন না, অনেকটা সময় তিনি মাথা নিচু করে বসেছিলেন ডাগআউটে।


এর আগে সাই সুদর্শনের ৪৭ বলে ৯৬ রানের (৮ চার আর ৬ ছক্কা) বিধ্বংসী ইনিংসে ভর করে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ২১৪ রান তুলেছিল গুজরাট। এছাড়া ঋদ্ধিমান সাহা ৩৯ বলে ৫৪, শুভমান গিল ২০ বলে ৩৯ এবং হার্দিক পান্ডিয়া ১২ বলে করেন অপরাজিত ২১ রান।


জেবি/এসবি

মেসিকে ধন্যবাদ এমবাপ্পের


ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 প্রকাশ: ০৮:২৯ পিএম,২৯শে মে ২০২৩

কিলিয়ান এমবাপ্পে

ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে এক ম্যাচ আগে শিরোপা নিশ্চিত করেছে  প্যারিস জায়ান্ট  পিএসজি। এবার লিগটির বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার উঠেছে ফরাসি স্ট্রাইকার কিলিয়ান এমবাপ্পের হাতে। 


চলতি মৌসুমে ২৮ গোল করেছেন এমবাপ্পে।এমবাপ্পের এমন দুর্দান্ত পারফরম্যান্সে লিওনেল মেসিরও সহযোগিতায় আছে বেশ। 


আরও পড়ুন: ছোটন দায়িত্ব ছেড়েছে যাতে আমার মানহানি হয়: বাফুফে সভাপতি


লিগে মেসি এ পর্যন্ত ১৬টি অ্যাসিস্ট করেছেন। যার বেশির ভাগই এমবাপ্পের গোলে।তাই সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার জিতে মেসিকে ধন্যবাদ দিলেন এমবাপ্পে। 


আরও পড়ুন: বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ লিটন


তিনি বলেন, ‘অবশ্যই আমি লিওকে ধন্যবাদ জানাতে চাই। সব খেলোয়াড়ের মতো সেও আমাকে অনেক সাহায্য করেছে।’


জেবি/এসবি

ছোটন দায়িত্ব ছেড়েছে যাতে আমার মানহানি হয়: বাফুফে সভাপতি


ক্রীড়া ডেস্ক
🕐 প্রকাশ: ০৬:৩২ পিএম,২৯শে মে ২০২৩

বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন

নারী ফুটবলাররা যখনই বাফুফের ক্যাম্প ছাড়ছে ঠিক তখনই বাংলাদেশ জাতীয় নারী ফুটবল দলের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে পদত্যাগ করেছেন কোচ গোলাম রব্বানী ছোটন। সোমবার (২৯ মে) নিজের পদত্যাগপত্র তিনি বাফুফের কাছে প্রেরণ করেন।


অপরদিকে, দেশের ফুটবলের এমন পরিস্থিতিতে ছোটনের পদত্যাগ নিয়ে সংবাদধ্যমের সঙ্গে কথা বলেছেন বাফুফে সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। তিনি বললেন, নারী দলের এই কোচের সরে যাওয়া একটি ধাক্কা হলেও সেটি পূরণ করা সম্ভব। 


আরও পড়ুন:পদত্যাগ করছেন সাফজয়ী নারী দলের কোচ ছোটন


বাফুফে যখন চাপে রয়েছে ঠিক তখনই ছোটন দায়িত্ব ছেড়ে সংস্থাটির মানহানি করেছে বলেও মন্তব্য করেন বাফুফে সভাপতি  সালাউদ্দিন।


আরও পড়ুন:বর্ষসেরা ক্রীড়াবিদ লিটন


তিনি সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘আমি আজ (২৯ মে) ছোটনকে ফোন করেছি। সে বলেছে যে তার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করবে না। কোনো সমস্যা থাকলে ছোটন আমার সঙ্গে কথা বলতে পারতো। আমার মনে হয়, বাফুফে যখন চাপের মধ্যে আছে, সেই সময়টাকে সে (ছোটন) বেছে নিয়েছে যাতে আমার ও আমার সংস্থার মানহানি হয়।’


এর আগে নিজের পদত্যাগপত্র জমা দিয়ে নারী দলের কোচ বলেন, আমি মেইলে পদত্যাগপত্র বাফুফেকে পাঠিয়েছি।


জেবি/এসবি